| |

Ad

হালুয়াঘাটে জিনের বাদ্শা এখন কারাগারে

আপডেটঃ 2:51 pm | November 14, 2020

দুলাল রায়: সীমান্তবর্তী হালুয়াঘাট উপজেলার ২ নং জুগলী ইউনিয়নের যাদুকুড়া গ্রামের মৃত ছমির উদ্দিনের ছেলে ইয়াসিন আরাফাত (২৮) এর যোগসাজশে এনামুল হক শান্তা নাবালিকা মেয়ে বিয়ের প্রলোভনের মাধ্যমে ভুল বুঝাইয়া অপহরণ করে নিয়ে যায়। ফাহিমা খাতুন শান্তার মা মেয়েকে খুঁজাখুজি করে না পেয়ে হালুায়াঘাট থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করে। মামলাটি তদন্তাধীন রয়েছে।

আরাফাতের ব্যবহৃত মোবাইল নম্বর থেকে শান্তার মায়ের মোবাইল নম্বরে ফোন করে জিনের বাদশা পরিচয় দিয়ে শান্তাকে উদ্ধারের কথা বলে । ১৩-১০-২০২০ ইং তারিখে রাতে ঘর অন্ধকার রাখার জন্য বলে সে আসবে এবং শান্তার এবং আরাফাত আসে সম্পুর্ণ উলঙ্গ অবস্থায়। এসে শান্তার মায়ের সাথে আপত্তিকর কথা বলে শান্তার মা কিছু করতে না দেওয়ায় জোর করে ধর্ষণের চেষ্টা করে এবং সাথে থাকা ছুড়ি দিয়ে শান্তার মাকে আঘাত করে। শান্তার মায়ের ডাক চিৎকারে এলাকাবাসী উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। বিবাদী আরাফাত দৌড়ে পালিয়ে গিয়ে পুকুরে পরে আহত হয়।

তাহাকেও পুলিশ হেফাজতে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আরো জানা যায় ইয়াসিন আরাফাত জুগলী কমিনিটি সেন্টারের নৈশ প্রহরীরর চাকুরীরত অবস্থায় রয়েছে।