| |

Ad

কেন্দুয়ায় বসতঘরের সাথে আগুনে ছালেহার স্বপ্ন পুড়ে ছাই

আপডেটঃ 1:29 pm | January 25, 2020

সাইফুল আলম, কেন্দুয়া প্রতিনিধি:-নেত্রকোণার কেন্দুয়ার মাসকা ইউনিয়নের কীর্তনখলা গ্রামের স্বামী পরিত্যাক্তা ছালেহা বেগমের স্বপ্ন পুড়ে ছাই হলো বসত ঘরের আগুনে। বৃহস্পতিবার (২৩ জানুয়ারী) সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় হত দারিদ্রের সকল ছাপই ছিল পুড়ে যাওয়া একমাত্র ঘরটিতে।

এই ঘরটিই ছিল ছালেহা বেগমের একমাত্র সম্বল। বুধবার (২২ জানুয়ারী) গভীর রাতে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুন লেগে পুড়ে ছাই হয়ে যায়। সেই সাথে পুড়ে দু’টি গরুর শরীর এবং স্থানীয় আশা সমিতি নামে একটি এনজিও থেকে ঋণ তুলে এনে রাখা ১৫ হাজার টাকা।

গ্রামে গ্রামে ঘুরে দোকানদারী করে জীবিকা নির্বাহ করা ছালেহা বেগম জানান, স্বপ্ন ছিল দোকান করে আয়ের টাকা দিয়ে মাথা গুজার একটি সুন্দর ঘর তৈরি করবো। কিন্তু আগুন লেগে সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। সেই সাথে পুড়ে ছাই হলো আমার ঘর তৈরির স্বপ্ন।

পোড়া টাকা দেখিয়ে বলেন, আমি এখন কি করে আশা সমিতির কিস্তি দেবো সেই চিন্তায় দিশেহারা। ছালেহা বেগমের পাশের ঘরের আলমগীর ও দুলাল মিয়া জানান, প্রায় ৮০ হাজার টাকা মূল্যের ২টি গরু আগুনে পুড়ে ঝলসে গেছে।

পশু হাসপাতাল থেকে এনায়েতুল নামে একজন ডাক্তার এসেছিলেন ইঞ্জেকশন ও কিছু ঔষধ লিখে দিয়ে গেছেন। এছাড়া নগদ টাকা ও ঘর পুড়ে ৬০/৭০ হাজার টাকার মতো ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

সংরক্ষিত মহিলা ইউপি সদস্য হেলেনা আক্তার জানান, বুধবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে এ আগুন লাগে। স্থানীয়রা প্রায় ২ ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নেভায়।

টাকা পুড়ে যাওয়ার ব্যাপারে কেন্দুয়া আশা সমিতির ব্রাঞ্চ ম্যানেজার আমির হোসেন জানান, ছালেহা বেগম ২০ হাজার টাকা ঋণ নিয়েছিলেন। তিনি এখনো আমাদেরকে কিছু জানাননি। পরিদর্শন না করে কিছুই বলতে পারবো না।