| |

Ad

ঝিনাইগাতীতে ১৭ বছরেও আলোর মুখ দেখেনি মহিলা বিপনী বিতান

আপডেটঃ 1:01 pm | September 28, 2019

এসএম নয়ন, ঝিনাইগাতী প্রতিনিধি :- শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে ১৭ বছরেও আলোর মুখ দেখছে না মহিলা বিপনী বিতান। এ বিতানে ব্যবসা-বাণিজ্য করে সাবলম্বী হওয়ার কথা নারীদের। কিন্তু এখানে হচ্ছে তার উল্টোটা। নারীদের নামে কক্ষ বরাদ্দ নিয়ে কক্ষগুলো গোডাউন হিসেবে ভাড়া বাণিজ্য চালিয়ে আসছেন পুরুষরা।

ফলে এ মহিলা বিতানের কক্ষগুলো ১৭ বছরেও আলোর মুখ দেখেনি। সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে নারী ব্যবসায়ীরা। জানা যায়, ২০০২ সালে উপজেলা সদর বাজারে ইফাদ দাতা সংস্থার অর্থায়নে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর এ বিতানটি নির্মাণ করে। প্রায় ১০ লাখ টাকা ব্যয়ে ১০ কক্ষ বিশিষ্ট এ মহিলা বিপনী বিতানটি নির্মাণ করা হয়। ক্ষুদ্র নারী ব্যবসায়ীদের ব্যবসা করে সাবলম্বী করে গড়ে তুলার লক্ষে নির্মাণ করা হয় এ বিতানটি।

নিয়ম অনুযায়ী হতদরিদ্র ক্ষুদ্র নারী ব্যবসায়ীদের নামে কক্ষ বরাদ্দ দেয়ার কথা থাকলেও তা করা হয়নি। স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এ বিতানটির নিয়ন্ত্রণ করে থাকেন। ইউপি চেয়ারম্যান মোফাজ্জল হোসেন চাঁন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, পূর্বের চেয়ারম্যানগণ কক্ষ বরাদ্দ দিয়েছেন। তার আমলে এসব ঘর বরাদ্দ দেয়া হয়নি বলে তিনি জানান।

তিনি বলেন, বর্তমানে যাদের নামে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে তাদের কাছ থেকে কক্ষ ছাড়িয়ে নিয়ে প্রকৃত নারী ব্যবসায়ীদের মাঝে বরাদ্দ দেয়া হবে। বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী লুৎফর রহমান জানান, স্থানীয় প্রভাবশালীদের নামে কক্ষ বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। তারা নিজেরা ব্যবসা-বাণিজ্য না করে ভাড়া বাণিজ্য চালিয়ে আসছে। এতে বিতানটি নির্মাণের পর থেকেই ৬টি কক্ষ বন্ধ রয়েছে।

এতে সরকারের বিতান নির্মাণের উদ্যেশ্য ব্যাহত হচ্ছে। প্রকৃত নারী ব্যবসায়ীদের নামে কক্ষ বরাদ্দ দিয়ে ব্যবসা-বাণিজ্যের সুযোগ সৃষ্টির দাবীতে আনোয়ারা বেগম নামে এক ব্যবসায়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট আবেদন করেছেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুবেল মাহমুদ বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।