| |

Ad

নালিতাবাড়ীর সোহাগপুর বিধবাপল্লী নিয়ে প্রামাণ্যচিত্র নির্মাণ করছে সেনাবাহিনী

আপডেটঃ 12:09 pm | July 08, 2019

শেরপুরের নালিতাবাড়ীর সোহাগপুরের সেই বিধবাপল্লী (বীরকন্যাপল্লী) নিয়ে প্রামাণ্যচিত্র নির্মিত হচ্ছে। বিধবাপল্লীর বিধবাদের জীবনে ঘটে যাওয়া ঘটনাগুলো নতুন প্রজন্মের অনুপ্রেরণার উৎস হিসেবে তুলে ধরতে সেই প্রামাণ্যচিত্র তৈরির পরিকল্পনা করছে সেনাবাহিনী। এ উপলক্ষে ৪ জুলাই বৃহস্পতিবার দুপুরে সেনাবাহিনীর ১৯ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি’র নির্দেশনায় ৩০৯ পদাতিক বিগ্রেডের অধিনস্থ ৫৮-ই বেঙ্গলের উপ-অধিনায়ক মেজর সোহেল রানা পিএসসি’র নেতৃত্বে সেনাবাহিনীর একটি দল বিধবাপল্লী পরিদর্শন করেন। এ সময় এক মতবিনিময় সভায় মেজর সোহেল রানা পিএসসি স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা ও বীরকন্যাদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনাদের মাধ্যমেই আমরা স্বাধীন সার্বভৌম রাষ্ট্র পেয়েছি এবং এখনও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় দেশের জন্য কাজ করতে অনুপ্রাণিত হচ্ছি। তাই বিধবাপল্লীর ইতিহাস নিয়ে প্রামাণ্যচিত্র তৈরিসহ সেনাবাহিনীর আরও কিছু পরিকল্পনা রয়েছে। এসব পরিকল্পনার আওতায় ট্রাস্ট ব্যাংকের মাধ্যমে মাসিক ভাতা প্রদানের পাশাপাশি সেনাবাহিনীর অর্থায়নে নির্মিত প্রাথমিক বিদ্যালয়টি রেজিস্টার্ড প্রতিষ্ঠানে রূপ দিতে কার্যক্রম চলছে। এরপর তিনি মুক্তিযোদ্ধা ও বীরাঙ্গনাদের সাথে কুশল বিনিময় করেন। মতবিনিময় সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিটের সাবেক কমান্ডার নুরুল ইসলাম হিরু, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউল হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রহমান তালুকদার, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হাশেম, বীরাঙ্গনা করফুলি বেওয়া প্রমুখ। অনুষ্ঠানে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা নেতৃবৃন্দ, বিধবাপল্লীর বীরাঙ্গনাগণসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। বিধবাপল্লীর শহীদ পরিবার কল্যাণ সমিতির সভাপতি জালাল উদ্দিন জানান, বিধবাপল্লীর বিধবাদের কল্যাণে দীর্ঘদিন যাবত ট্রাস্ট ব্যাংকের মাধ্যমে প্রতিমাসে ৪শ টাকা হারে ভাতা প্রদান করছে সেনাবাহিনী। এছাড়া বিধবাপল্লীতে সেনাবাহিনীর সহায়তায় নির্মিত হয়েছে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়।