| |

Ad

কংগ্রেসের হাল ধরছেন কে?

আপডেটঃ 10:45 am | July 05, 2019

কংগ্রেস সভাপতির পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন রাহুল গান্ধী। স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠেছে কে হচ্ছেন ভারতীয় উপমহাদেশের সবচেয়ে প্রাচীন এই দলটির কান্ডারি।
যে দুই নেতার নাম সবচেয়ে বেশি শোনা যাচ্ছে তারা হলেন সুশীল কুমার সিন্ধে এবং মল্লিকার্জুন খারগে।
ভারতের সর্বশেষ লোকসভা নির্বাচনে দলের ব্যর্থতার দায় কাঁধে নিয়ে ভোটের ফল প্রকাশের (২৩ মে) দুই দিনের মাথায় পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছিলেন রাহুল।
যদিও দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা তাকে ওই সিদ্ধান্ত বদলের জন্য বারবার অনুরোধ জানিয়ে আসছিলেন।
কিন্তু নিজের সিদ্ধান্তে অনড় রাহুল বুধবার দলীয় সভাপতির পদে না থাকার বিষয়ে এক খোলা চিঠিতে তার অবস্থান স্পষ্ট করেন।
রাহুলের সভাপতি পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর কারণে ভারতের শতাব্দী প্রাচীন দল কংগ্রেসের দায়িত্ব তৃতীয়বারের মত নেহেরু-গান্ধী পরিবারের বাইরের কারো হাতে পড়তে যাচ্ছে। এর আগে পি ভি নরসিমা রাও এবং সীতারাম কেশরি কংগ্রেসের সভাপতি ছিলেন।
‘এক সপ্তাহের মধ্যেই’ নতুন সভাপতি খুঁজে নেওয়া হবে বলে কংগ্রেসের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক নেতাদের বরাত দিয়ে বুধবার জানায় এনডিটিভি।
কংগ্রেসের নতুন সভাপতি কে হচ্ছেন সেই সিদ্ধান্ত রাহুল, তার মা সাবেক সভাপতি সোনিয়া গান্ধী এবং বোন প্রিয়াঙ্কা গান্ধীই নেবেন বলে ধারণা ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর।
এ বছর জানুয়ারিতে রাহুলের বড় বোন প্রিয়াঙ্কা রাজনীতিতে যোগ দেন। প্রিয়াঙ্কার রাজনীতিতে যোগদান কংগ্রেসের ভোটের পালে জোর হাওয়া দেবে বলে আশা করা হয়েছিল। কিন্তু বাস্তবে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ক্যারিশমার কাছে সব ফিকে হয়ে গেছে।
এবারের লোকসভা নির্বাচনে মাত্র ৫২টি আসনে জয় পায় কংগ্রেস। অপরদিকে ২০১৪ সালের চেয়ে আরো শক্তিশালী হয়ে টানা দ্বিতীয় মেয়াদে ভারতের ক্ষমতায় আসে মোদীর দল বিজেপি নেতৃত্বাধীন জোট এনডিএ। বিজেপি একাই ৩০৩ আসনে জয়লাভ করেছে।
এনডিটিভি জানায়, মহারাষ্ট্রের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী এবং সাবেক ইউনিয়ন মন্ত্রী অভিজ্ঞ নেতা সুশীল কুমার সিন্ধেই (৭৭) কংগ্রেস সভাপতি হতে যাচ্ছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।
দলিত সম্প্রদায়ের নেতা সুশীল মহারাষ্ট্রের প্রভাবশালী নেতা, যেখানে এ বছরের শেষ দিকে বিধানসভা নির্বাচন হবে। গান্ধী পরিবারেও তিনি দারুণ আস্থাভাজন।
অন্যদিকে মল্লিকাজুর্ন খারগে গত লোকসভায় কংগ্রেস নেতা ছিলেন।
যদিও এবারের লোকসভা নির্বাচনে অনেকটা বিস্ময়করভাবে হেরে গেছেন ৭৬ বছরের এই অভিজ্ঞ নেতা। কয়েক দশকের রাজনৈতিক জীবনে এটা তার প্রথম হার।
মল্লিকাজুর্ন একাধিকবার কংগ্রেসের ইউনিয়ন মন্ত্রী ছিলেন।

লন্ডনে মৃত মায়ের থেকে জন্ম শিশুটির মৃত্যু
এনএনবি : চারদিন ধরে চলেছে যমে-মানুষে টানাটানি। শেষ পর্যন্ত হেরে গেলো ছোট্ট রাইলি। লন্ডনে ছুরিকাঘাতে নিহত অন্তঃসত্ত্বা মায়ের পেট থেকে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে যাকে পৃথিবীতে আনা হয়েছিল।
গত শনিবার ভোররাত সাড়ে ৩টায় দক্ষিণ লন্ডনের একটি ঠিকানায় পুলিশের ডাক পড়ে। সেখানে গিয়ে ছুরিকাঘাতে নিহত ২৬ বছরের এক অন্তঃসত্ত্বা নারীকে পান তারা। অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে ওই মৃত কেলি ম্যারির পেটে থাকা মুমূর্ষু রাইলিকে বের করে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।
বুধবার স্থানীয় সময় ০২:১০ জিএমটিতে মারা যায় রাইলি।
ডিটেক্টিভ চিফ ইন্সপেক্টর মিক নরম্যান বলেন, “আজ সকালে আমরা কেলির ছেলে রাইলির মৃত্যুর দুঃখজনক খবরটি পাই। তার পরিবারের জন্য সমবেদনা।”