| |

Ad

সুইজারল্যান্ডের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে স্পিকারের সৌজন্য সাক্ষাৎ

আপডেটঃ 5:39 am | February 08, 2018

ঢাকা প্রতিনিধি ঃ বাংলাদেশ সফররত সুইজারল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট অ্যালেইন বেরসের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী। গতকাল বুধবার হোটেল সোনারগাঁওয়ে এই সাক্ষাৎ হয় বলে সংসদ সচিবালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। সেখানে বলা হয়, রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিতে সীমান্ত খুলে দিয়ে ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মানবতার নবদিগন্তের সূচনা’ করেছেন এবং জাতিসংঘে তার প্রস্তাবিত পাঁচ দফার আলোকেই রোহিঙ্গা সংকটের স্থায়ী সমাধানের প্রক্রিয়া চলছে বলে সুইস প্রেসিডেন্টকে জানান শিরীন শারমিন। তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের শান্তিপূর্ণ প্রত্যাবর্তন ও পুনর্বাসনে মিয়ানমারকেও এগিয়ে আসতে হবে। রোহিঙ্গা সমস্যার স্থায়ী সমাধানের জন্য আর্ন্তজাতিক জনমত তৈরি ও মানবতা লংঘনের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে সুইজারল্যান্ড সরকারের সহযোগিতা চান বংলাদেশের স্পিকার। সেই সঙ্গে কক্সবাজারের কুতুপালংয়ে গিয়ে রোহিঙ্গাদের ‘মানবেতর জীবন-যাপন’ দেখে আসায় সুইস প্রেসিডেন্টকে তিনি ধন্যবাদ জানান। শিরীন শারমিন এ সময় নারী উন্নয়ন, তাদের প্রশিক্ষণ, দক্ষতাবৃদ্ধি এবং তরুণ প্রজন্মকে মানব সম্পদে পরিণত করার কাজে সুইজারল্যান্ডকে বাংলাদেশের পাশে থাকার অনুরোধ জানান। অ্যালেইন বেরসে বলেন, নারীর ক্ষমতায়নে বাংলাদেশ অনুকরণীয় এবং অর্থনৈতিক বিভিন্ন সূচকে ও দারিদ্র্য বিমোচনে এদেশের অগ্রগতি লক্ষ্যণীয়। ১৩৬তম আইপিইউ এবং ৬৩তম সিপিসি সম্মেলন সফলভাবে আয়োজন করে বাংলাদেশ নিজেদের সক্ষমতার প্রমাণ দিয়েছে। দুই দেশের সংসদ সদস্যদের সফর বিনিময়ের মাধ্যমে বিদ্যমান সম্পর্ক আরও জোরদার করার উপরও গুরুত্ব আরোপ করেন তিনি। রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধানে পাশে থাকার আশ্বাস দিয়ে সুইস প্রেসিডেন্ট বলেন, রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে বাংলাদেশ বিশ্ববাসীর নজর কেড়েছে- যা প্রশংসনীয়। সংসদের প্রধান হুইপ আ স ম ফিরোজ, সংসদ সচিব আবদুর রব হাওলাদার, সুইজারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত রেনে হোলেস্টাইন এ সময় উপস্থিত ছিলেন। পরে সুইস প্রেসিডেন্ট বাংলাদেশের জাতীয় সংসদ ভবনে যান এবং ঘুরে দেখেন বলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়। তিন দিনের সফর শেষে গতকাল বুধবারই ঢাকা ত্যাগ করেন প্রেসিডেন্ট অ্যালেইন বেরসে।